AllMinority TortureNews

দিনাজপুরে রাধাকৃষ্ণের প্রতিমা চুরি ও মন্দির ভাংচুর

দিনাজপুরে রাধাকৃষ্ণের প্রতিমা নিয়ে পালিয়েছে দূর্বৃত্তরা বলছেন দিনাজপুরের সংবাদ মাধ্যম দিনাজপুর নিউজ ,তাঁরা জানাচ্ছেন যে,

দিনাজপুরে রাধাকৃষ্ণের প্রতিমা নিয়ে পালিয়েছে দূর্বৃত্তরা

গত রবিবার গভীর রাতে দিনাজপুর রাজবাড়ি উত্তর পার্শ্বের পঞ্চত্তত্ব মন্দিরের স্থাপনা ভাংচুর করে রাধাকৃষ্ণের প্রতিমা নিয়ে পালিয়েছে অজ্ঞাত দূর্বৃত্তরা।

রাজবাড়ি মন্দির এলাকার বসবাসকারীরা জানান,রাজদেবোত্তর সম্পদ দিন দিন বেহাত হয়ে যাচ্ছে। মহারাজার সম্পদ সনাতন ধর্মের মানুষদেরই ভোগদখলের অধিকার রয়েছে অথচ এখন অন্যান্য ধর্মের কিছু অপরাধ জগতের সাথে সম্পৃক্ত মানুষরাও এখানে বসতবাড়ি স্থাপন করে বসবাস করতে শুরু করেছে। তারা এখানে মাদকসহ নানান রকমের ব্যবসা চালাচ্ছে। হরিসভার পঞ্চত্তত্ব মন্দিরের স্থাপনা ভাংচুরের সঙ্গে অপরাধ জগতের সাথে জড়িতরাই ঘটাতে পারে বলে তাদের আশংকা।

বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদ সদর উপজেলা কমিটির আহবায়ক ও রাজবাড়ি হরিসভা কমিটর সভাপতি বিনোদ সরকার ও সদস্য সচিব রাজু কুমার দাস, বাবু মিহির কুমার ঘোষ জানান, পঞ্চত্তত্ব মন্দিরের স্থাপনা ভাংচুর করে রাধাকৃষ্ণের প্রতিমা নিয়ে পালিয়েছে দূর্বৃত্তরা। তারা জানান, দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় সংখ্যালুঘু সম্প্রদায়ের মানুষেরা রাজবাড়ির ওই স্থানে হরিসভা করে আসছে।

তারা আরো বলেন,এখানে হিন্দু ধর্মীয় ভােব সকলের সহযোগীতায় গত শুক্রবার পঞ্চত্তত্ব মন্দির ও হরিসভা স্থাপনের কাজ শুরু করা হয়েছে । এতে করে কিছু লোক দেবোত্তর সম্পদ বেহাত হওয়ার ভয়ে মন্দির ও হরিসভা স্থাপনে বিরুপ মনোভাব হওয়ার কারনেই এই ঘটনার সৃষ্টি হয়েছে।

রাজদেবোত্তর সম্পদ ভোগদখলের সুযোগ না পাওয়ার আশংকা থেকেই মন্দিরের স্থাপনা ভাংচুর ও প্রতিমা গায়েব করা হয়েছে বলে তারা মনে করেন।

তারা প্রশাসনের কাছে এধরনের জঘন্য কাজের সাথে যুক্ত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে বিচার ও কঠোর শাস্তির দাবী করেছেন। অন্যথায় যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার জন্যে প্রশাসন দায়ী থাকবে বলে তারা জানান।

এব্যাপরে ঘটনাস্থলে সঙ্গীয় ফোর্সসহ উপস্থিত এসআই মমিনের নিকট জানতে চাইলে তিনি মন্তব্য করতে অস্বীকার করেন।

Loading

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *